ছিলেন সহকারী অধ্যাপক, হয়ে গেলেন প্রভাষক

প্রশাসনের অনুমতি ছাড়া বিদেশে অবস্থান করায় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) দর্শন বিভাগের একজন সহকারী অধ্যাপকের পদাবনতি হয়েছে। তাঁকে প্রভাষক করা হয়েছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেটের এক সদস্য এই তথ্য জানিয়ে বলেন, সিন্ডিকেটের সভায় এই সিদ্ধান্ত হয়েছে।

দর্শন বিভাগের ওই শিক্ষকের নাম আসমাত আরা ইসলাম। তিনি যুক্তরাজ্য থেকে গত মাসে দেশে এসেছেন।

সিন্ডিকেটের ওই সদস্য জানান, আসমাত আরা বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমতি ছাড়া দীর্ঘদিন যুক্তরাজ্যে অবস্থান করছিলেন। কর্মস্থলে অনুপস্থিত ও যোগাযোগ না করায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন তাঁকে দুবার কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়। তিনি নোটিশের কোনো সদুত্তর দিতে না পারায় তদন্ত কমিটি গঠন করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

গত ২৪ আগস্ট সিন্ডিকেট সভায় তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন ও শিক্ষকের কারণ দর্শানোর নোটিশের বিষয়ে পর্যালোচনা করা হয়। ওই সিন্ডিকেট সভায় শিক্ষকের পদাবনতির সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে আসমাত আরা ইসলাম বলেন, ‘২০১৩ সালের ১৪ সেপ্টেম্বর স্নাতকোত্তর করার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের অনুমতি নিয়ে আমি যুক্তরাজ্যে যাই। এরপর ২০১৫ সালে স্নাতকোত্তর শেষে দেশে এসে বিভাগে যোগদান করি। পরে সমাবর্তন যোগদান ও থিসিস জমাদানের জন্য ২০১৬ সালের জুলাইয়ে যুক্তরাজ্যে যাই এবং আগস্টে চলে আসি। এই কয়েকদিনের জন্য আমি কোনো অনুমতি নিইনি।’

বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে কারণ দর্শানোর উত্তর দেওয়া সম্পর্কে আসমাত আরা বলেন, ‘আমার কাছে পাঠানো নোটিশের জবাব দিয়েছি। তারপরও সিন্ডিকেট আমার পদাবনতির সিদ্ধান্ত নিয়েছে।’

জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান বলেন, ‘প্রশাসনকে না জানিয়ে বিদেশ ভ্রমণ করলে নিয়মের মধ্যেই সিন্ডিকেট সিদ্ধান্ত নেয়। ওই শিক্ষকের (আসমত আরা ইসলাম) ক্ষেত্রেও তাই হয়েছে। এর আগেও (ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের অধ্যাপক রইছ উদ্দিনকে সহযোগী অধ্যাপক করা হয়েছিল) এ ধরনের ঘটনায় শাস্তি হয়েছে। সিন্ডিকেট তার নিয়ম অনুযায়ী চলবে।’

About Kuy@s@News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*