ভালোবাসার টানে বাংলাদেশে আমেরিকান ব্যাংক কর্মকর্তা

বাংলাদেশের তরুণরা ফেসবুকে প্রেম করতে দারুণভাবে সফলতা দেখাচ্ছে। ভালোবাসার টানে সুদূর মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া, যুক্তরাষ্ট্র, ব্রাজিলসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে নারীরা বাংলাদেশে পাড়ি জমাচ্ছে। এবার যুক্তরাষ্ট্র থেকে ফরিদপুরে এসেছেন এক মার্কিন নারী। তার নাম শ্যারুন খান (৪০)। তিনি পেশায় একজন ব্যাংকার। ভালোবাসার টানে বাংলাদেশে এসে গত ১০ এপ্রিল বিয়ে করেছেন ফরিদপুরের মো. আশরাফ উদ্দিন সিংকুকে (২৬)।

ছয় মাস আগে ফেসবুকের মাধ্যমে পরিচয় হয় শ্যারুন আর আশরাফের। পরে তা পরিণয়ে গড়ায়। পরিচয়ের সূত্র ধরে একসময় শ্যারুন বিয়ের প্রস্তাব দিলে রাজি হন আশরাফ। শ্যারুনকে বিয়ে করায় আশরাফ ও তার পরিবারও খুশি। শ্যারুনকে দেখতে প্রতিদিনই আশরাফের বাড়িতে ভিড় করছে অসংখ্য মানুষ। শ্যারুনও সবার সঙ্গে বাংলায় কথা বলার চেষ্টা করছেন।

আশরাফের বাড়ি ফরিদপুরের সদর উপজেলার কানাইপুর ইউনিয়নের ঝাউখোলা গ্রামে। তিনি কবি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের মাস্টার্সের ছাত্র। দুই বোন এক ভাইয়ের মধ্যে আশরাফ সবার বড়। বাবা পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের গাড়িচালক। আশরাফের বাবা ঢাকায় থাকলেও পরিবারে অন্য সদস্যরা ফরিদপুর নদী গবেষণা ইনস্টিটিউটের স্টাফ কোয়ার্টারে থাকেন।

এ বিষয়ে আশরাফ জানান, ছয় মাস আগে ফেসবুকের মাধ্যমে পরিচয় হয় আমেরিকান ব্যাংক কর্মকর্তা শ্যারুনের সঙ্গে। কথা বলার একপর্যায়ে সে আমাকে বিয়ে করার কথা জানায়। সেই সূত্রে গত ৬ এপ্রিল বাংলাদেশে আসে শ্যারুন। গত ১০ এপ্রিল তারা ঢাকায় বিয়ে করেন। শ্যারুন মুসলিম হওয়াতে বিয়েতে কোনো ঝামেলা হয়নি।

 

শ্যারুন বলেন, ‘বাংলাদেশ তাঁর খুব পছন্দ। এছাড়া আমার স্বামী, তার পরিবার ও এদেশের মানুষসহ গোটা পরিবেশ খুবই ভালো লেগেছে। ২১ এপ্রিল চলে যাওয়ার পর দ্রুত আবার এখানে ফিরে আসবো।‘

এদিকে, পরিবারের সবাই বিদেশি বউ পেয়ে ভীষণ খুশি। এলাকায় আসার পরে স্থানীয় পাড়া-প্রতিবেশীরাও তাদের দেখতে আসছে। সবাই তাদের বিয়েকে স্বাগত জানিয়েছে বলে জানান পরিবারের সদস্যরা।

About Kuy@s@News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*