ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে মানুষের কৌতূহল সামলানো শিখেছেন কোহলি

বিরাট কোহলি ও আনুশকা শর্মা। বিয়ের পর যখন মধুচন্দ্রিমায় গিয়েছিলেন। ছবি: কোহলির ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট

বিরাট কোহলি ভারতের সবচেয়ে জনপ্রিয় ক্রীড়া তারকা। তাঁর ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে মানুষের প্রচুর কৌতূহল। এ ব্যাপারটা কোহলিকে মাঝেমধ্যে অস্বস্তিতে ফেললেও মানিয়ে নিতে শিখেছেন। কোহলি নিজেই জানিয়েছেন এ কথা।

বিরাট কোহলি ভারতীয় ক্রীড়াঙ্গনে জনপ্রিয়তম তারকা। তাঁর ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে মানুষের আগ্রহের শেষ নেই। আর তাই অনাকাঙ্ক্ষিত সমালোচনাও সইতে হয় কোহলিকে। আনুশকা শর্মার সঙ্গে তাঁর বিয়ের কথাই ধরুন, এ নিয়ে এখনো মানুষের আলোচনার শেষ নেই। কিন্তু শেখার ব্যাপারে কোহলির জুড়ি মেলা ভার। বিয়ের পর এই ছয় মাসের মধ্যে তিনি শিখে ফেলেছেন, লোকের কথায় কান না দিয়ে কীভাবে জীবনকে এগিয়ে নিতে হয়।

ইতালিতে গত ডিসেম্বর আনুশকা শর্মার সঙ্গে জীবনের গাঁটছড়া বাঁধেন কোহলি। দুজনের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক চলার সময় থেকেই লোকে নানা রকম কথা বলেছে, কটূক্তি করেছে। এমনকি ইতালিতে বিয়ে নিয়েও অনেকের আপত্তি ছিল। বিয়েটা তাঁরা কেন নিজ দেশে করলেন না? শুধু বিলাসিতার জন্য ভিনদেশকে অনর্থক এতগুলো টাকা দেওয়ার কী দরকার…ইত্যাদি।

কোহলির কাছে অনেক সময় মানুষের এসব কথা খারাপ লাগলেও এখন মানিয়ে নিতে শিখেছেন। সংবাদ সংস্থা আইএনএসকে ভারতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক বলেন, ‘ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে মানুষের ধারাবাহিক কৌতূহল অনেক সময় খারাপ লাগে। তবে এসব কীভাবে সামলাতে হয় তা শিখে ফেলেছি। তারকারাও আর দশজনের মতো সাধারণ মানুষ, আর তাই আমার মনে হয় তাঁদের স্বাভাবিক জীবন যাপন করতে দেওয়া উচিত।’
ব্যক্তিগত ও পেশাদার জীবনে কীভাবে ভারসাম্য ধরে রাখতে হয়, সেটাও শিখে ফেলেছেন কোহলি। তিনি নিজেই বলেছেন, ‘পরিবারের সঙ্গে থাকলে আমি ক্রিকেট থেকে পুরোপুরি দূরে থাকার চেষ্টা করি। বন্ধুদের সঙ্গে বেড়াতে যাই, পোষা কুকুরের সঙ্গেও সময় কাটাই।’

ক্রিকেটের তিন সংস্করণেই কোহলিকে বর্তমান ক্রিকেটের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান বলে মনে করা হয়। ভারতীয় ক্রিকেটপ্রেমীদের মধ্যে অনেকেরই বিশ্বাস, শচীন টেন্ডুলকার রেকর্ডগুলো ভাঙার মতো সামর্থ্য রয়েছে ২৯ বছর বয়সী এই ব্যাটসম্যানের। এই বয়সেই বড়মাপের তারকা ইমেজ পেয়ে যাওয়ায় তাঁকে প্রশ্ন করা হয়েছিল, বলিউডে নিজের জীবনীর ওপর সিনেমা বানানো নিয়ে আগ্রহ আছে কি না? এর আগে মহেন্দ্র সিং ধোনির জীবনী নিয়ে সিনেমা কিন্তু দর্শক লুফে নিয়েছে।

কোহলির মতে, এ নিয়ে সেভাবে ভাবনাচিন্তার সময়টা এখনো আসেনি, ‘এসব নিয়ে এখনই খুব বেশি ভাবছি না। তবে যদি কখনো বানানোও হয়, আমার মতে সেটা হবে পুরোপুরি নিজের বাস্তবজীবন–নির্ভর সিনেমা, আত্মজীবনী অবলম্বনে বানানো কোনো কিছু নয়।’

About admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*