৯০০ বছর বেঁচেছিলেন এই সাধুবাবা! শিষ্য ছিলেন ইন্দিরা গান্ধী থেকে বাজপেয়ী

কোনও মানুষের পক্ষে কি ৯০০ বছর বেঁচে থাকা সম্ভব? আমাদের দেশেই ছিলেন এমন এক সাধু যিনি ৯০০ বছর ধরে বেঁচে ছিলেন বলে দাবি করা হয়। দেবরাহা বাবা নামে ওই সিদ্ধ যোগী ১৯৯০ সালে ইহলোক ত্যাগ করেন।

অনেক বই বা তথ্যচিত্রেও তাঁর কথা উল্লেখ রয়েছে। কোথাও কোথাও বলা হয়েছে, তিনি ২৫০ বছর বেঁচেছিলেন। সে ২৫০ বছরই হোক বা ৯০০, কোনোটাই তো খুব একটা স্বাভাবিক নয়। তাঁর জীবনের সবটাই রহস্য।

কার্ড এর জন্য নিম্নে ক্লিক করুন

তাঁর শিষ্যরা বলেন, বাবা কোনোদিন কোনও পোশাক পরতেন না। একটা কাঠের ঘরে থাকতেন। দিনে একবার বাইরে যেতেন স্নান করতে। তাঁকে ভগবানের অবতার বলেও ব্যাখ্যা করতেন অনেকে। তাঁর ভক্তেরা বলেন, তাঁর নাকি জড় পদার্থের উপরও কন্ট্রোল ছিল। যেমন ধরা যাক, তিনি যদি ছবি তুলতে না চাইতেন, তাহলে তাঁর দিকে লক্ষ্য করে যতই ক্লিক করা হোক না কেন, ক্যামেরায় ধরা পড়তেন না সাধুবাবা। এমনকি বন্দুক থেকে গুলি ছুতবে কিনা সেটাও তিনি কন্ট্রোল করতে পারতেন। কুম্ভমেলার সময় একমাস গঙ্গার ধারে ও একমাস যমুনার তীরে বসে থাকতেন তিনি। জলের তলায় ৩০ মিনিট থাকতে পারতেন। শুধু মানুষেরই নয়, পশু-পাখির মনও নাকি পড়তে পারতেন তিনি। সবটাই শুনতে রূপকথার মত। তবে তাঁর শিষ্যদের কথা শুনলে মনে হয়, সবটাই বিশ্বাসযোগ্য।

শোনা যায়, তিনি যখন, যেখানে চাইতেন সেখানেই যেতে পারতেন। মানুষের মন পড়ে ফেলতে পারতেন সহজেই। দুধ আর মধু ছাড়া জীবনে আর কিছু খাননি তিনি। তাঁর শিষ্যদের মধ্যে ছিলেন ড. রাজেন্দ্র প্রসাদ, ইন্দিরা গান্ধী, অটল বিহারী বাজপেয়ী, লালু প্রসাদ যাদবের মত তাবড় সব নেতা-নেত্রীরা।

About Kuy@s@News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*